গফরগাঁও ভুমি অফিসের কর্মকর্তা কর্মচারীদের দ্রুত জনসেবা নিশ্চিত করতে ভুমি কর্মকর্তার নির্দেশ

গফরগাঁও ভুমি অফিসের কর্মকর্তা কর্মচারীদের দ্রুত জনসেবা নিশ্চিত করতে ভুমি কর্মকর্তার নির্দেশ

- in প্রচ্ছ্দ, সারাদেশ
328

আব্দুল মান্নান পল্টন,ময়মনসিংহ প্রতিনিধি:
ময়মনসিংহের গফরগাঁও উপজেলা ভুমি অফিসে সেবা নিতে আসা মানুষদের দ্রুত সেবা দিতে ভুমি অফিসে কর্মরত কর্মকর্তা কর্মচারিদের নির্দেশ দিয়েছেন উপজেলা সহকারি কমিশনার ভুমি শেখ শামছুল আরেফীন। সম্প্রতি উন্নত সেবা প্রদানের পরিপেক্ষিতে অনেকটাই বদলে গেছে সীমাহীন দুর্নীতি অনিয়মের আখড়া হিসেবে খ্যাত গফরগাঁও ভুমি অফিসের চালচিত্র। অল্প কিছু দিনের মধ্যে গফরগাঁও ভুমি অফিসে জনদুর্ভোগ বলতে কোন শব্দ থাকবেনা বলে দাবী করেছেন নিকশ কালো অন্দকারে ডেকে যাওয়া ভুমি অফিসে আলো ছড়ানো এ ভুমি কর্মকর্তা শেখ শামছুল আরেফীন।
ভুমি অফিস কতৃক বরাবরই জনদুর্ভোগের চিরচারিত সমালোচনার প্রচলিত ধারনা ভেঙ্গে নতুন আঙ্গিকে দ্রুতসময়ে সেবা প্রদানের নজির সৃষ্টি করেছেন তিনি।
জনবান্ধব ভুমি অফিস গড়ার লক্ষে জমি সংক্রান্ত বিভিন্ন মামলার গণ শূনানি গ্রহণ ও সেবা প্রার্থীদের বসার জন্য ভুঁই কথন নামে একটি নতুন ঘরও নির্মাণ করেছেন তিনি। সেবা নিতে এসে কোন মানুষ যাতে হয়রানির স্বীকার না হয় সেই জন্য হেল্প ডেক্স নামে একটি সেবা কেন্দ্র চালু করেছেন। এলোমেলো অগোছালু ভুমি অফিসের রেকট রোম থেকে শুরু করে প্রতিটি রোমে রক্ষিত ফাইল ও কাগজপ্রত্র নিরাপত্তার সাথে সংরক্ষনের যথাযথ ব্যাবস্থা গ্রহন করেছেন তিনি। নামখারিজ,মিসকেস, ভুমিহীনদের জন্য জমি বন্দোবস্ত,বিপি লিজ নবায়ণ প্রদানসহ ভুমি অফিসের সকল কাজ যাচাই বাছাই পুর্বক সচ্ছতার সাথে দ্রুতসময়ে সম্পন্ন করার মধ্যে দিয়েও ঈর্ষনীয় সুনাম অর্জন করেছেন তিনি ।
এ ছাড়াও ঘুষ দুর্ণীতি ও ভুমি অফিসের টাউট দালালদের বিচরণ বন্ধ করে এতদাঅঞ্চলে বেশ আলোচিতও হয়েছেন তিনি। একেধারে বেশ কয়েকদিন ভুমি অফিসে গিয়ে সীমাহীন জনদুর্ভোগ ও জনসেবার অনেক চিত্রই চোখে পড়েছে।
সেবা নিতে আসা অসংখ্য মানুষ অতি অল্প সময়ে বিনা উৎকোচে সেবা পেয়ে ভুমি অফিসের অমুল পরিবর্তন হয়েছে জানিয়ে ভুমি কর্মকর্তা শেখ শামছুল আরেফীনের ভুয়সী প্রশংসাও করেছেন। আবার সাবেক সার্ভেভেয়ার কাইয়ুম কতৃক দুভোর্গের শিকার এমন অনেকের আত্বচিৎকারও শোনা গেছে।
দীর্ঘ অনুসন্দানে জানা গেছে সিমাহীন জনদুর্ভোগের আরেক নাম দুর্নীতিবাজ সার্ভেভেয়ার আব্দুল কাইয়ুম। শত শত মানুষের কাছ থেকে প্রায় এক কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়ে গত ২মাস পুর্বে বদলি হয়ে জেলার নান্দাইল এসিল্যান্ড অফিসে চলে গেছেন তিনি। ভুক্তভোগীরা অনেকেই উপজেলা সহকারি কমিশনার ভুমি গফরগাঁও বরাবর টাকা ফিরে পেতে এবং তার বিচারের দাবীতে লিখিত আভিযোগ করেছেন। আব্দুল কাইয়ুমের অন্তহীন দুর্নীতি ও বিতর্কিত কমকান্ডে অনেকটাই সমালোচিত হয়েছে প্রানউচ্ছাস কর্মচঞ্চল এ ভুমি অফিস ।
ঘোষ গ্রহন ও বেপরোয়া কর্মকান্ডের কারনে গত দুই বছর পুর্বে গফরগাঁও ভুমি অফিস থেকে গ্রেফতার হয়েছিলেন সার্ভেভেয়ার কাইয়ুম। পরে অবশ্য তৎকালীন ভুমি কর্মকর্তা জিয়াউর রহমান তাকে নিজ জিম্মায় গফরগাঁও থানা থেকে ছাড়িয়ে এনেছিলেন। সার্ভেভেয়ার আব্দুল কাইয়ুমের বিরুদ্ধে অনেক ভুক্তভোগীরা মামলা করারও পস্তুতি নিচ্ছেন বলে জানা গেছে।

 

fb_img_1478953352971
ঋুমি অফিসের প্রধান সহকারি আব্দুল মজিদ জানান সার্ভেয়ার তার কাছ থেকেও টাকা নিয়ে টাকা ফেরৎ দেননি। কানুনগো গোলাম মোস্তফা চরআলগীর নায়েব চাঁন মিয়া সহ ভুমি অফিসে কর্মরত সকলেই সার্ভেভেয়ার কাইয়ুমের আকাশসম ভয়াবহ দুর্নীতির নানা চিত্র তোলে ধরেন।
এসব বিষয়ে কথা হয় ভুমি অফিসের আমুল পরিবর্তনকারি কর্মগুনে ভুমি অফিসের প্রতি মানুষের আস্থা বিশ^াস ফিরিয়ে আনা সেই এসিল্যান্ড শেখ শামছুল আরেফীনের সাথে তিনি জানান স্থানীয় এমপি ফাহমি গোলন্দাজ বাবেল মহোদয় ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সিদ্ধার্থ শঙ্কর কন্ডু স্যারসহ ভুমি অফিসে কর্মরত সবার সহযোগীতায় জনকল্যান মুলক কাজ করে যাচ্ছি। এ অফিসে যোগদানের পুর্বের অনেক কাজ জমে ছিল। যা অনেকটাই অভারকাম করে ফেলেছি। সার্ভেভেয়ার আব্দুল কাইয়ুম প্রসঙ্গে তিনি বলেন তার বিরুদ্ধে অসংখ্য লিখিত অভিযোগ পেয়েছি তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যাবস্থা নেয়া হবে বলে জানান কর্মগুনে আলো ছড়ানো ভুমি কর্মকতা শেখ শামছুল আরেফীন। আব্দুল কাইয়ুম এখানে কর্মরত থাকা কালিন সময়ে অভিযোগ গুলো পেলে অনেকটাই ভাল হত, টাকা গুলো উদ্ধার করা সহজ হত বলেও মন্তব্যে করেছেন তিনি।