গফরগাঁওয়ে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেয়া নিয়ে আ.লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষ, ইটপাটকেল নিক্ষেপ, পুলিশের গুলি, আহত-১২

গফরগাঁওয়ে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেয়া নিয়ে আ.লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষ, ইটপাটকেল নিক্ষেপ, পুলিশের গুলি, আহত-১২

আব্দুল মান্নান পল্টন,ময়মনসিংহ ব্যুরো,
ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেয়া নিয়ে স্থানীয় আ’লীগ দু’ই গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও ইট পাটকেল নিক্ষেপের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় আহত হয় চেয়ারম্যান সমথর্ক মামুন, শাকিল,স্বপন, মাসুম ও প্রতিপক্ষ হাদিউল ইসলামসহ দু’পক্ষের অন্তত ১৫ জন। ঘটনাটি ঘটে বৃহষ্প্রতিবার সন্ধ্যায় উপজেলার দত্তেরবাজার ইউনিয়নে পাগলা থানার সামনে।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে বেশ কয়েক রাউন্ড ফাকা গুলি ছুড়ে পাগলা থানা পুলিশ স্থানীয় সুত্রে জানা যায় গত তিন দিন পূর্বে উপজেলার পাগলা থানার পাগলা গ্রামের বাসীন্দা জাহিদ শামীম নামে এক যুবক ভাঙ্গাচুড়া রাস্তা নিয়ে ফেসবুকে একটি ট্যাটাস দেয়। সেই স্ট্যাটার্স দেয়া নিয়ে দত্তেরবাজার ইউপি চেয়ারম্যান রোকসানা আক্তারের ভাতিজা আজহারুলের কথা কাটাকাটি হয়। এ ঘটনায় সালিশ বৈঠকের প্রস্তুতিকালে ইউপি চেয়ারম্যান রোকসানা বেগম ও স্থানীয় আ.লীগ নেতা হাদিউল ইসলাম এ দুই গ্রুপ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে।
সংঘর্ষের দুইপক্ষের মধ্যে এক পর্যায়ে ইউপি চেয়ারম্যান রোকসানা বেগমের সমর্থকরা পিছু হাটে এবং পাগলা থানার গেটের ভিতরে আশ্রয় নিলে হাদিউল গ্রুপ সমর্থকরা সেখানে তাদের উপর হামলা চালায় ।
হাদিউল মড়ল অভিযোগ করে বলেন, আমরা দত্তের বাজার ইউপি চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে একদল লোক আমাদের উপর অতর্কিতে হামলা চালায়। ইউপি চেয়ারম্যান রোকসানা আক্তার বলেন, হাদিউল ও তার লোকজন আমাদের লোকজনের উপর হামলা চালালে আত্মরক্ষার্থে থানায় ক্যাম্পাসে আশ্রয় নেই। সেখানে তারা ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে।
এ ব্যাপারে পাগলা থানার ওসি চান মিয়া বলেন, সংঘর্ষের ঘটনায় তিন জনকে আটক করা হয়েছে। উভয় পক্ষ থেকে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।