মোবাইল ছিনতাই ঘটনাকে কেন্দ্র করে ময়মনসিংহে ছাত্রলীগের সংর্ঘষ, গুলিবিদ্ধসহ আহত ৭

মোবাইল ছিনতাই ঘটনাকে কেন্দ্র করে ময়মনসিংহে ছাত্রলীগের সংর্ঘষ, গুলিবিদ্ধসহ আহত ৭

মো: আনিসুর রহমান ফারুক,ময়মনসিংহ প্রতিনিধি:
ময়মনসিংহ নগরীতে একটি মোবাইল ছিনতাই ঘটনাকে কেন্দ্র করে ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীদের দু’টি গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ায় সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ সময় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে নিতে পুলিশ রাবার বুলেট ছুঁড়ে। এতে গুলিবিদ্ধ’সহ আহত হয়েছে কমপক্ষে ৭ ছাত্রলীগ নেতা-কর্মী।
বৃহস্পতিবার রাত ৮টার দিকে নগরীর বাউন্ডারি রোড এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ সময় পুরো এলাকায় আতংক ছড়িয়ে পড়ে।
এ সময় দিদার আহমেদ (১৭), হৃত্তিক (১৭) রাকিব (১৮) ও মৃদুল (১৮) গুলিবিদ্ধ হয়। এছাড়াও আহত হয় জেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অনি’সহ অপর গ্রুপের আরো দুই ছাত্রলীগ কর্মী আহত হয়।
স্থানীয়রা জানায়, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নওশেল আহমেদ অনি ও আনন্দমোহন কলেজ ছাত্রলীগ যুগ্ম আহবায়ক ইয়াসিন আরাফাত খোকন গ্রুপের মধ্যে একটি মোবাইল ছিনতাইকে কেন্দ্র করে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ সময় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ শটগানের রাবার বুলেট ছুড়লে ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীরা আহত হয়। আহতদের উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ৮ নম্বর ওয়ার্ডে নিয়ে ভর্তি করা হয়।
জেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নওশেদ আহমেদ অনি জানান, মোবাইল ছিনতাই হলে ছাত্রলীগ কর্মী শাহীন ছিনতাই হওয়া মোবাইল আনন্দমোহন কলেজ ছাত্রলীগ যুগ্ম আহবায়ক খোকন গ্রুপের তুষার নামের একজনের কাছ থেকে উদ্ধার করে। এ সময় শাহীন তুষারকে চরথাপ্পড় দিলে সন্ধ্যায় তুষার লোকজন নিয়ে এসে পিয়ন পাড়াস্থ শাহীনের বাসায় হামলা চালালে প্রতিরোধ গড়লে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। পুলিশ প্রশাসন বিষয়টি অবগত।
তবে যোগাযোগ করা হলে আনন্দমোহন কলেজ ছাত্রলীগ যুগ্ম আহবায়ক খোকনের মোবাইল ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।
এবিষয়ে জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি রকিবুল ইসলাম রকিব জানায়, মোবাইল ছিনতাইকে কেন্দ্র করে ঘটনার সূত্রপাত। তবে এটি ছাত্রলীগের ঘটনা নয়। রকিব বলেন, ছাত্রলীগের নাম ভাঙ্গিয়ে বা পদ ব্যবহার করে ব্যক্তিগত পর্যায়ে কেউ সংগঠন বিরোধী কর্মকান্ড করলে কেন্দ্র থেকেই তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।
ময়মনসিংহ জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (দক্ষিণ) নূরে আলম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।