অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে সিটি কর্পোরেশনের গেজেট

অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে সিটি কর্পোরেশনের গেজেট

আনিসুর রহমান ফারুক,ময়মনসিংহ :
কর্মকর্তাদের ভুলের কারণেই করপোরেশনের সীমানা নির্ধারণে নীতিমালাকে উপেক্ষা করা হয়েছে। এ অবস্থায় গেজেট প্রকাশের দায়িত্বে থাকা স্থানীয় সরকার বিভাগ ময়মনসিংহ ক্যান্টনমেন্টের ওই জায়গাটুকু বাদ দিয়ে নিজেদের ভুল সংশোধনের সুযোগ চাইলেও আইন মন্ত্রণালয় সাড়া দেয়নি। ফলে ঝুলে গেছে দেশের দ্বাদশ এ সিটি করপোরেশনের গেজেট প্রকাশ।নবগঠিত দেশের অষ্টম ময়মনসিংহ বিভাগীয় নগরীকে মাসখানেক আগে ৯১ দশমিক ৩১৫ বর্গকিলোমিটার এলাকা নিয়ে ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশন প্রস্তাব অনুমোদন দিয়েছে প্রশাসনিক পুনর্বিন্যাস সংক্রান্ত জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটি (নিকার)। অনুমোদনের পরপরই গেজেট প্রকাশ হওয়ার কথা।

তবে ওই সভায় অনুমোদিত সীমানায় ময়মনসিংহ ক্যান্টনমেন্টের প্রায় ১ দশমিক ১৫ বর্গকিলোমিটার জায়গা থাকায় গেজেট প্রকাশে জটিলতা তৈরি হয়েছে। এজন্য দায়ী করা হচ্ছে সীমানা নির্ধারণের সঙ্গে জড়িত কর্মকর্তাদের চরম গাফিলতিকে।

বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করে ময়মনসিংহ জেলা প্রশাসক (ডিসি)ড.সুভাষ চন্দ্র বিশ্বাস বলেছেন, আইন অনুযায়ী ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশনের সীমানায় ক্যান্টনমেন্টের জায়গা থাকতে পারে না। ভুলবশত কয়েকটি দাগ পড়েছে। ওই জায়গা বাদ দিয়েই গেজেট প্রকাশের কাজ প্রায় সম্পন্ন করেছে স্থানীয় সরকার বিভাগ। আশা করি শিগগিরই গেজেট প্রকাশিত হবে।

চলতি বছরের ০২ এপ্রিল ময়মনসিংহ পৌরসভাকে বিলুপ্ত করে ময়মনসিংহকে দেশের দ্বাদশ সিটি করপোরেশন হিসেবে প্রশাসনিক পুনর্বিন্যাস সংক্রান্ত জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটি (নিকার) সভায় অনুমোদন দেওয়া হয়। নতুন এ সিটি করপোরেশনে প্রতি বর্গকিলোমিটারে জনসংখ্যার ঘনত্ব ৫ হাজার ১৬৭ জন। এ হিসেবে নতুন এ মহানগরে মোট জনসংখ্যা ৪ লাখ ৭১ হাজার ৮৫৮ জন।

ওইদিনই ময়মনসিংহ পৌরসভার এবং সদর উপজেলার ১৩টি ইউনিয়নের মধ্যে দুটি পুরোপুরি (বয়ড়া ও আকুয়া) এবং ছয়টির (চরঈশ্বরদিয়া, দাপুনিয়া, খাগডহর, ভাবখালী, সিরতা ও চরনিলক্ষীয়ার আংশিক) সিটি করপোরেশনে অন্তর্ভুক্ত করার কথা জানান মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সচিব (সমন্বয় ও সংস্কার) এন এম জিয়াউল আলম।

এ সিদ্ধান্তের পর পরই স্থানীয় সরকার বিভাগ ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশনের গেজেট প্রকাশের উদ্যোগ নেয়। এরপরই সীমানা নির্ধারণে নীতিমালা না মানার বিষয়টি ধরা পড়ে। এতে দেখা যায়, সিটি করপোরেশনের অনুমোদনকৃত সীমানায় আকুয়া মৌজায় ময়মনসিংহ ক্যান্টনমেন্টের জমি ঢুকে পড়েছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, প্রায় সপ্তাহ দুয়েক আগে ময়মনসিংহ ক্যান্টনমেন্টের ওই জায়গাটুকু বাদ দিতে আইন মন্ত্রণালয় ও সংসদ বিষয়ক বিভাগে এ সংক্রান্ত নথি পাঠিয়েছে স্থানীয় সরকার বিভাগ। কিন্তু আইন মন্ত্রণালয় এ বিষয়ে এখন পর্যন্ত কোন সাড়া দেয়নি। এ অবস্থায় চরম বিপাকে পড়েছে স্থানীয় সরকার বিভাগ। ফলে সময় গড়ালেও গেজেট প্রকাশের কাজ এগুতে পারছে না তারা।

ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশনের গেজেট প্রকাশিত হলেই প্রশাসক নিয়োগ করা হবে। আবার প্রশাসক নিয়োগের ১৮০ দিনের মধ্যে নির্বাচন কমিশন নির্বাচনের ব্যবস্থা করবে। কিন্তু সীমানা নির্ধারণেই এমন গলদ থাকায় গেজেট প্রকাশও অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, সিটি করপোরেশনের এ সীমানা নির্ধারণের দায়িত্বে ছিলেন স্থানীয় সদর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি)। তার সঙ্গে ছিলেন জরিপ কর্মকর্তারা। তবে এটি চূড়ান্ত অনুমোদন করেছেন স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক। এরপর স্থানীয় সরকার বিভাগ এটি মন্ত্রিপরিষদে বিভাগে পাঠায়। সবার চোখের সামনেই এমন ভুল কিভাবে হয়ে গেলো এ নিয়ে উঠেছে নানা প্রশ্ন।