প্রতিরোধ ব্রিগেডের ৬ মাসের সফলতা ত্রিশালকে বাল্য বিবাহ মুক্ত ঘোষণা

প্রতিরোধ ব্রিগেডের ৬ মাসের সফলতা ত্রিশালকে বাল্য বিবাহ মুক্ত ঘোষণা

আব্দুল মান্নান পল্টন,ময়মনসিংহ :
ময়মনসিংহের ত্রিশালে বর্নাঢ্য আয়োজনে ও দুই শতাধিক প্রতিরোধ বিগ্রেড সদস্যদের উপস্থিতিতে বাল্য বিবাহ মুক্ত ঘোষণা করেছেন জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব ড. মো. মোজাম্মেল হক খান। ব্রিগেড কর্মীদের ব্যাপক সফলতায় বুধবার সকালে ত্রিশাল নজরুল একাডেমী মাঠে আনুষ্ঠানিক ভাবে এ ঘোষণা দেন তিনি।
ত্রিশাল উপজেলা প্রশাসন আয়োজিত বাল্যবিয়ে মুক্ত ঘোষনা অনুষ্ঠানে ময়মনসিংহ বিভাগীয় কমিশনার জি এম সালেহ উদ্দিনের সভাপতিত্বে ত্রিশাল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু জাফর রিপনের উপস্থাপনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিবের সহধর্মীনী রাজিয়া সুলতানা, ময়মনসিংহ রেঞ্জের ডিআইজি নিবাস চন্দ্র মাঝি, জেলা প্রশাসক ড. সুভাষ চন্দ্র বিশ^াস, পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলাম, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জয়নাল আবেদিন, জামালপুরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক লোকমান হোসেন।
বাল্য বিবাহ ও যৌন হয়রানি প্রতিরোধ ব্রিগেডের পক্ষ থেকে বক্তব্য রাখেন ব্রিগেড লিডার মাহবুবা আলম তৃপ্তি। এসময় ময়মনসিংহ জেলার সকল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, কাজী, শিক্ষক ও ১৮টি ব্রিগেড টিমের ১শ’ ৮৬ জন কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।
এ সময় বাল্য বিয়ে প্রতিরোধে ত্রিশাল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু জাফর রিপনের উদ্ভাবিত শিক্ষার্থীদের নিয়ে গঠিত প্রতিরোধ ব্রিগেড টিমের কার্যক্রম ,ডকুমেন্টারীর ভুয়সী প্রশংসা করেন।
অনুষ্ঠানে বিভাগীয় কমিশনার জিএম সালেহ উদ্দিন বলেন বাল্য বিয়ে প্রতিরোধে ত্রিশাল উপজেলার প্রতিরোধ টিমের কার্যক্রম সারাদেশে ছড়িয়ে দেয়ার লক্ষ্যে ময়মনসিংহ বিভাগের সকল উপজেলায় টিম গঠন করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।
ময়মনসিংহ জেলা প্রশাসক ড. সুভাস চন্দ্র বিশ্বাষ বলেন, বাল্য বিয়ে মুক্ত হতে শিক্ষার্থী অভিভাবকদের সচেতনতার বিকল্প নেই। বিগ্রেড টিমের মাধ্যমেই এ আন্দোলন গড়ে তুলা সম্ভব।
ময়মনসিংহ জেলা পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলাম বলেন, ত্রিশাল উপজেলায় বৃক্ষ রোপনে হেলথ কার্ডের ব্যবহার, বাল্য বিয়ে প্রতিরোধে ব্রিগেড টিম গঠন, শতভাগ বিদ্যালয়ে শহীদ মিনার নির্মান সহ যে ধরনের পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে তা বাংলাদেশে ব্যতিক্রম ও মডেল হয়ে থাকবে।
বাল্য বিয়ে প্রতিরোধ ব্রিগেড টিমে উদ্ভাবক ও ইউএনও আবু জাফর রিপন জানান, বাল্য বিয়ে ও যৌন হয়রানি একটি সামাজিক ব্যধি। এ থেকে মুক্তি পেতে আমরা আইন প্রয়োগ করলে সামাজিক কিছূ প্রতিক্রিয়ার সম্মুখীন হয়। এ থেকে মুক্ত হতে ২০১৭ সালের ৩১ অক্টোবর পাইলট প্রকল্প হিসেবে উপজেলার ধলা স্কুলে ১০ জন শিক্ষার্থীদের নিয়ে প্রতিরোধ টিম গঠন করা হয়। টিমের সদস্যরা দল গতভাবে তার সহপাঠি ও অভিভাবকদের সচেতনতার কাজ শুরু করলে ঐ ইউনিনয় এক মাসেই বাল্য বিয়ে বন্ধ করতে আমরা সক্ষম হয়। পাইলট প্রকল্পের সফলতা পেয়ে গত ৬ই ফেব্রুয়ারী উপজেলার ১২টি ইউনিয়নে ১৮টি টিম ১৮৬ জন সদস্যদের নিয়ে গঠনের মাধ্যমে গত ৬ মাসে আইন প্রয়োগ ছাড়াই সচেতনতার ও ক্যাম্পিংয়ের মাধ্যমে ৬৮টি বাল্য বিবাহ বন্ধ করছে। ব্রিগেডের তৎপরতায় বাল্য বিবাহ বন্ধ হয়ে যাওয়ায় উপজেলাকে বাল্য বিবাহ মুক্ত ঘোষণা করা হয়।
প্রতিরোধ ব্রিগেডটিম গুলো নিজস্ব পোষাক, সাইকেল নিয়ে গ্রামে গ্রামে কাজ করে যাচ্ছে। প্রতি টিমেই একজন করে তত্বাবধায়ক ও অফিসিয়াল মোবাইলের মাধ্যমে উপজেলা প্রশাসন থেকে সার্বিক যোগাযোগ রক্ষা করা হয়।