চিরিরবন্দরে পত্রিকা বিক্রি করে স্বাবলম্বী আনিছুর

চিরিরবন্দরে পত্রিকা বিক্রি করে স্বাবলম্বী আনিছুর

মো. মিজানুর রহমান (মিজান), চিরিরবন্দর (দিনাজপুর) প্রতিনিধি:

দিনাজপুরের চিরিরবন্দর উপজেলার প্রথম সংবাদপত্র হকার আব্দুল গনির ছেলে আনিছুর রহমান (৩০) পত্রিকা বিক্রি করে এখন স্বাবলম্বী। উপজেলার নশরতপুর ইউনিয়নের পশ্চিম পাড়া গ্রামের বাসীন্দা। জীবিকার তাগিদে বাবার পরে বেছে নিয়েছেন সংবাদপত্র বিক্রির কাজ। প্রতিদিন উপজেলা শহরের বিভিন্ন স্থানে ঘুরে ঘুরে সংবাদপত্র বিক্রি করে সংসার চালাচ্ছে। অভাব-অনটনের সংসারে যখন তিনি জর্জরিত তখনই সৈয়দপুরের সংবাদপত্র এজেন্ট (মন্ডল পেপার হাউস) আব্দুল মন্ডলের সহযোগিতায় বেছে নেন বাবার পুরোনো ব্যবসা সংবাদপত্র বিক্রির কাজ। প্রথমে পায়ে হেটে বিভিন্ন স্থানে পত্রিকা বিক্রি করলেও এখন তার ছেলে আনিছুর বা-সাইকেল যোগে উপজেলার বিভিন্ন স্থানে যথাসময়ে পাঠকের কাছে পৌঁছে দেন সংবাদপত্র সবার আগে। চিরিরবন্দর হকার্স সদস্য মো: আনিছুর রহমান প্রতিবেদকের সাথে আলাপ কালে এভাবেই তার অভিব্যক্তি প্রকাশ করেন।
সে জানান, এভাবেই এক সময়ের বেকার যুবক আনিছুর হয়ে উঠেন জীবন সংগ্রামের একজন সফল সৈনিক। প্রতিদিন সকালে তাকে দেখা যায় সংবাদপত্র হাতে নিয়ে ছুটছেন গ্রাহকদের দ্বারে দ্বারে। ৯ বছরের বেশী সময় ধরে পেপার বিক্রি করছেন আনিছুর। সবার মাঝে জ্ঞানের আলো ছড়িয়ে দিয়ে আনিছুর যে মহৎ কাজটি করছেন তা শুধু নিজের জন্যই নয় সমাজ ও দেশের জন্যও কল্যাণকর।
তিনি জানান, প্রতিদিন সংবাদপত্র বিক্রি করে যা উপার্জন হয় তা দিয়ে তার ভালোই চলে। একজন বেকার যবুক ইচ্ছে করলেই তার মতো পরিশ্রম করে কর্মসংস্থান তৈরী করতে পারে। ফিরিয়ে আনতে পারে সংসারের সচ্ছলতা । এই কাজটি করে আনিছুর তার সংসারের দরিদ্রতা মোচন করে কিছু টাকা সঞ্জয়ও করেছেন। প্রায় দু’বছর হয়েছে বিয়ে করেছে আনিছুর বাবা হওয়ার আগে সঞ্জয় করে নিজেকে তৈরী করতে চায়।
এছাড়া সংবাদপত্র বিক্রির কাজটি তার ভালো লাগে । মানুষের কাছে খবর পৌচ্ছে দেওয়া তার পেশার থেকে নেশা হয়ে গেছে বলে সে জানায়। সমাজের কোনো বিত্তশালী মানুষ বা প্রতিষ্ঠান তাকে আর্থিক সহায়তা করলে তিনি নিজেই সংবাদপত্রের এজেন্সি নিয়ে এলাকার বেকার যবুকদের এ পেশায় নিয়োজিত করবেন বলে স্বপ্ন দেখেন।