গার্মেন্ট শ্রমিক নেতাদের ২০ রোজার মধ্যে বেতনের দাবি

গার্মেন্ট শ্রমিক নেতাদের ২০ রোজার মধ্যে বেতনের দাবি

নিজস্ব প্রতিবেদক,ঢাকা ঃ 

জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে শুক্রবার (১৮ মে) গার্মেন্ট শ্রমিক টেড ইউনিয়ন কেন্দ্র আয়োজিত এক সমাবেশে শ্রমিক নেতারা এ দাবি জানান।আয়োজক সংগঠনের সভাপতি মন্টু ঘোষের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে আরও বক্তব্য রাখেন- সংগঠনটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আলী হোসেন, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক মঞ্জুর মঈন, সাদেকুর রহমান শামীম, ইকবাল হোসেন, জয়নাল আবেদীন।বক্তব্যে মন্টু ঘোষ বলেন, মজুরি বোর্ডের কার্যক্রম ইচ্ছাকৃতভাবে বিলম্বিত করা হচ্ছে। অথচ এটি ছয় মাসের মধ্যে শেষ করার বাধ্যবাধকতা রয়েছে।তিনি বলেন, মজুরি বোর্ডে মালিক পক্ষের প্রতিনিধির সদিচ্ছার অভাবে কেবল একটি সভা হয়েছে। গত ২৫ এপ্রিল দ্বিতীয় সভা করার কথা থাকলেও তা করা হয়নি। ইচ্ছাকৃতভাবে মজুরি বোর্ডের কার্যক্রম বিলম্বিত করার জন্যই এমন ষড়যন্ত্র হচ্ছে।মন্টু ঘোষ আরও বলেন, অবিলম্বে এটি বন্ধ করে ন্যূনতম ১৬ হাজার টাকা মজুরি নির্ধারণ করতে হবে। অন্যথায় বিহত্তর আন্দোলনের ডাক দেওয়া হবে।একই সঙ্গে আগামী ২০ রোজার মধ্যেই মজুরি এবং বেসিকের সমান বোনাস পরিশোধ করার দাবিও জানান ওই নেতা।বক্তব্যে অন্য নেতারা বলেন, শুধু বেতন বোনাস নয়, বন্ধ কারখানা খুলে দিতে হবে। যেসব কারখানা শ্রমিকদের বকেয়া বেতন পরিশোধ করেনি তাদের ঈদের আগেই সেগুলোও পরিশোধ করতে হবে।সমাবেশে শ্রমিকরা রামপুরার আশিয়ানা গার্মেন্ট কারখানাসহ বন্ধ অন্যান্য কারখানা খুলে দেওয়ারও জোর দাবি জানান।