পল্লী কবি জসিম উদ্দিনের নকশি কাঁথার মাঠের ,নায়ক রূপাইয়ের মৃত্যু বার্ষিকী আজ

পল্লী কবি জসিম উদ্দিনের নকশি কাঁথার মাঠের ,নায়ক রূপাইয়ের মৃত্যু বার্ষিকী আজ

মাহমুদ হাসান সজিব গফরগাঁও ময়মনসিংহ
পল্লী কবি জসিম উদ্দিনের অমর কাব্যগ্রন্থ নকশি কাঁথার মাঠের নায়ক বীর লাঠিয়াল কালো মানিক,ওরফে (রুপা গুন্ডা) রূপাইয়ের ৯ম মৃত্যু বার্ষিকী পালিত হয়েছে গতকাল শনিবার। বাদ মাগরিব ময়মনসিংহের গফরগাঁও উপজেলা সদরের শিলাসী গ্রামের নিজ বাড়িতে দোয়া মিলাদ মাহফিল ও কাঙ্গালী ভোজের আয়োজন করে মরহুম রুপাইয়ের পরিবার। রুপা রুপা গুন্ডার পুরো নাম আহাম্মদ আলী ওরফে রূপা মিয়া। তবে তার নিজ এলাকায় রূপা মিয়া, রূপা গোন্ডা,ও রূপাই লাঠিয়াল এ তিনটি নামেই পরিচিত ছিলেন তিনি। অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদী,জুলুমবাজ,চাদাবাজ,ও ধর্মীয় কুসংস্কারকারীদের আতঙ্ক সাম্যবাদ অগ্রদূত এবং অসাম্প্রদায়িক রাজনীতি খাঁটি বাঙ্গালী ছিলেন রূপাই। ২০০৮ সালের ২২ এপ্রিল শিলাসী গ্রামের নিজ বাড়িতে বার্ধক্যের কাছে পরাজিত হয়ে মৃত্যুবরণ করেন নকশি কাঁথার মাঠ অমর কাব্যগ্রন্থের নায়ক রূপাই।
লোকজ সাহিত্য সংগ্রহ করার কাজে ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ে এসেছিলেন পল্লী কবি জসিম উদ্দিন। গফরগাঁওয়ে এসে কবি জসিম উদ্দিন প্রত্যক্ষ করেন ধান কাটা নিয়ে দুই গ্রামবাসীর মধ্যে ভয়াবহ কাইজ্যা। সেই কাইজ্যায় নেতৃত্বে ছিলেন লম্বা মাথার চুল কৃঞ্চবর্ণ গড়ন তেজশ্বী দূঃসাহসিক যুবক রূপা গুন্ডা। রক্তে রজ্ঞিত হয়েছিল কাইজ্জার মাঠ হতা হত হয়েছিল অসংক্ষ্য মানুষ। বীর লাঠিয়াল রূপা গুন্ডার বীরত্বে কবি জসিম উদ্দিন মনোমৃগ্ধ হয়ে সেই ভয়াবহ কাইজ্জাকে কেন্দ্র করে পল্লী কবি জসিম উদ্দীন নকশি কাঁথার মাঠ নামক অমর কাব্যগ্রন্থটি লিখেছেন। কবির ভাষায় সেই কাইজ্যার কথা……
বন গেঁয়োরা ধান কেটে নেয়
থাকতে মোরা গফরগাঁওয়ে
এই কথা শোনার আগে
মরিনি ক্যান গোরের ছাইয়ে ?
কবি জসিম উদ্দিন নিজের পরিচয় গোপন করে রুপাই লাঠিয়ালের সাথে সু সম্পর্ক গড়ে তুলেন, গফরগাঁওয়ের একটি চাষ্টলে বেশ কয়েকদিন আড্ডা জমিয়ে চা পান করেন। সেই চা পান করা অবস্থায় লাঠিয়াল রূপাই অজপাড়াগাঁয়ের চাষীর মেয়ে সাজুর সঙ্গে পরিচয় থেকে কঠিন প্রেম ও পরিণয়ের বর্ণনা সহ জীবনের অনেক গোপন কথাই কবিকে অকপটে বলে দেন। পল্লী কবির এত কাছে থেকেও রূপাই লাঠিয়াল চিনতে পারেননি কবি জসিম উদ্দীনকে। পল্লী কবির অত্যান্ত স্নেহধন্য ছিলেন বীর লাঠিয়াল কালো মানিক রূপাই।
সালটয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নাজমুল হক ঢালী ও বীর লাঠিয়াল রূপার ছেলে আব্দুল কাইয়ুম বলেন প্রতি বছর মৃত্যুবার্ষিকীতে দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে রূপাইয়ের কবরস্থান দেখতে অসংক্ষ্য লোকজন এসে থাকে।
মাহমুদ হাসান সজিব