ডিমলায় আরডিআরএস-বাংলাদেশ’র উৎসাহ উদ্দীপনায় শুভ জন্মদিন উৎযাপন

ডিমলায় আরডিআরএস-বাংলাদেশ’র উৎসাহ উদ্দীপনায় শুভ জন্মদিন উৎযাপন

মো: জাহাঙ্গীর আলম রেজা, ডিমলা, (নীলফামারী) প্রতিনিধি: বে-সরকারী সংস্থা রংপুর-দিনাজপুর রুরাল সার্ভিস (আরডিআরএস)-বাংলাদেশের ৪৬-তম শুভ জন্মদিন ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনায় উৎযাপিত হয়েছে। দিনটি উপলক্ষে নীলফামারীর ডিমলায় বৃহস্পতিবার বিকেলে সংস্থাটির এরিয়া কার্যালয়ে শুভ জন্মদিনের কেক কাটার পূর্বেই রিড প্রকল্পের টেকনিক্যাল অফিসার (টি.ও) মোঃ জহুরুল হকের সঞ্চালনায় সংস্থার বিভিন্ন প্রকল্প ও কার্যক্রমের উপর ভিডিও চিত্র প্রর্দশনের মাধ্যমে আলোচনা করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ রবিউল ইসলাম,রানী বৃন্দারানী সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ আব্দুল হানিফ সরকার, কনর্সান ওয়ার্ল্ড ওয়াইড সংস্থার বন্যাদূর্গতদের পূর্নবাসন সার্পোটিং আরলি রিকোভারী প্রকল্পের প্রতিনিধি আমেনা খাতুন রোজীনা, আরডিআরএসে’র মাইক্রোফাইন্যান্স’র এরিয়া ম্যানেজার নিখিল চন্দ্র অধিকারী, ডিমলা শাখা ব্যবস্থাপক আয়শা সিদ্দিকা ও ডিমলা রিপোর্টাস ইউনিটির সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক জাহাঙ্গীর আলম রেজা প্রমুখ। সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভায় এরিয়া ম্যানেজার নিখিল চন্দ্র অধিকারী বলেন,বে-সরকারী সংস্থা আরডিআরএস সুনামের সাথেই দীর্ঘ ৪৬ বছর ধরেই কাজ করছে দেশের মানুষের কল্যানে। সংস্থাটি বিভিন্ন অলাভজনক প্রকল্পের মাধ্যমে মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে। তিনি বলেন, ডিমলা উপজেলায় প্রাথমিক শিক্ষা ব্যবস্থায় শিশুদের শিক্ষা ভীত তৈরীতে সহায়তা করে আসছে রিড প্রকল্প ২০১৫ সাল থেকেই। শুধু তাই নয় এ সংস্থার মাধ্যমে স্কুল ফিডিং কার্যক্রম চালু আছে। যা অতি নিষ্টা ও সততার সাথে পরিচালিত হচ্ছে। সম্প্রতি শুরু হয়েছে বন্যার্তদের পূর্নবাসনে একটি ইমারজেন্সি প্রকল্প। যা তিস্তা পাড়ের মানুষের ঘুরে দাড়ানোর জন্য অনেকটাই সহায়তা করবে। বর্তমান শিক্ষা ব্যবস্থার বিভিন্ন দিক তুলে ধরে আলোচনা করেন প্রধান শিক্ষক আব্দুল হানিফ সরকার। তিনি বলেন, আমাদের কমল মতি শিশুদের প্রাথমিক পর্যায়েই তাদের ভিত্তি তৈরী করতে হবে টেকসই শিক্ষা ব্যবস্থায়। এ প্রসঙ্গে কথা বলতে গিয়ে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ রবিউল ইসলাম বলেন, আসলে আমরা যদি নিজ দায়িত্বেই শিক্ষা ব্যবস্থায় শিশুদের ক্লাসে মনোযোগী হই তাহলেই এ ব্যবস্থার আমুল পরিবর্তন করা সম্ভব। তিনি উপজেলায় কর্মরত প্রাথমিক পর্যায়ের শিক্ষকদের উদ্দেশ্যে করে বলেন, আমাদের শিক্ষকরা অত্যান্ত মনোযোগী ও নিবেদিত ভাবেই শিশুদের পাঠদান দিয়ে থাকেন। তবে তিনি শিক্ষকদের প্রতি অনুরোধ করে বলেন আপনাদের আর একটু সচেতন হতে হবে। তাহলেই আমাদের শিক্ষা ব্যবস্থা শতভাগ সফল হবে বলে আমার বিশ্বাস। আলোচকদের আলোচনা শেষে উপস্থিত অতিথিবৃন্দের মাধ্যমে সংস্থাটি শুভ জন্মদিনের কেক কেটে উৎযাপন করা হয় দিনটি। এ সময় সহকর্মী ও অতিথিদের মুখে কেক তুলে দেন একে অপরকে। শুরু হয় আনন্দঘন একটি মূহুর্তের।