কোটা সংস্কার আ‌ন্দো‌লনের তিন নেতা আট‌ক, কিছুক্ষণ পর মুক্ত

কোটা সংস্কার আ‌ন্দো‌লনের তিন নেতা আট‌ক, কিছুক্ষণ পর মুক্ত

অনলাইন ডেস্ক ঃ কোটা সংস্কার আ‌ন্দোল‌নের কেন্দ্রীয় তিন নেতা‌কে আটক করার কিছুক্ষন পর আবার ছে‌ড়ে‌ দি‌য়ে‌ছে ডি‌বি পু‌লিশ। আজ ১৬ এ‌প্রিল সোমবার রাজধা‌নীর ঢাকা মে‌ডি‌কে‌লের সাম‌নে থে‌কে তা‌দের‌কে ডি‌বি পু‌লিশ কতৃক আটক করা হয়। ত‌বে আট‌কের এক ঘন্টা প‌রে তা‌দের আবার ছে‌ড়ে দেয়া হয়। আটককৃতরা হ‌লো কোটা সংস্কা‌র আ‌ন্দোলন কেন্দ্রীয় ক‌মি‌টির যুগ্ম আহবায়ক রা‌শেদ খান, নুরুল হক এবং ফারুক।
 পু‌লিশ তা‌দের‌কে ছে‌ড়ে দেয়ার পর তারা ক্যাম্পা‌সে এ‌সে সংবাদ স‌ম্মেল‌ন ক‌রে। সংবাদ স‌ম্মেল‌নে তারা ব‌লেন পুলিশ আমা‌দের চোখ বেঁধে  উঠিয়ে নিয়ে যায়। আমাদেরকে আমাদের সঙ্গে তেমন ভাল ব্যবহার করেনি। ইনিয়ে বিনিয়ে আমাদেরকে রাজনৈতিক রং লাগানোর চেষ্টা করেছে। আমাদের কাছথেকে বিশেষ একটি রাজনৈতিক দলের সদস্য হিসেবে প্রমাণের চেষ্ঠাও ক‌রে‌ছে তারা।
সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক নুরুল হক বলেন, কোটা সংস্কার আন্দোলন করতে গিয়ে আহতদের দেখতে তাঁরা তিনজন রিকশায় করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে যাচ্ছিলেন।দুপুর দেড়টার দিকে হাসপাতালের জরুরি বিভাগের সামনে যাওয়া মাত্র সাদা পোশাকের ডিবি পুলিশের কয়েকজন সদস্য অস্ত্র দেখিয়ে তাঁদের তিনজনকে মাইক্রোবাসে ওঠায়। এরপর একজনের চোখ-মুখ বেঁধে ফেলে।


এ অবস্থায় ডিবি পুলিশের সদস্যরা তাঁদের বলেন, তাঁদের কাছ থেকে কিছু তথ্য নেবেন এবং ভিডিও দেখাবেন। এরপর তাঁদের গুলিস্তানে নিয়ে যান। সেখানে ডিবি পুলিশের সদস্যরা কয়েকটি গামছা কেনেন। এরপর গামছা দিয়ে তাঁদের বাকি দুজনের চোখ-মুখ বেঁধে ফেলেন। রমনায় ডিবি কার্যালয়ে নিয়ে তাঁদের চোখ-মুখ খোলা হয়। দুপুর আড়াইটার দিকে তাঁদের ছেড়ে দেয় ডিবি পুলিশ। এরপর তাঁরা ক্যাম্পাসে চলে আসেন।