সাতক্ষীরায় শিশু ধর্ষণ, আসামিকে ছাড়িয়ে নিল প্রভাবশালীরা

সাতক্ষীরায় শিশু ধর্ষণ, আসামিকে ছাড়িয়ে নিল প্রভাবশালীরা

শিশুকন্যা ধর্ষনসাতক্ষীরা প্রতিনিধি: সাতক্ষীরায় সাড়ে তিন বছরের এক শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় জড়িত অভিযোগে গ্রামবাসী মজিদ পাটোয়ারী নামে এক ব্যক্তিকে হাতেনাতে ধরে গাছের সঙ্গে বেঁধে রাখে। পরে তাকে স্থানীয় প্রভাবশালীরা ছাড়িয়ে নিয়ে যায়।

বুধবার সন্ধ্যায় ওই শিশুর মা বাদী হয়ে সাতক্ষীরা সদর থানায় মামলা করেছেন। মামলার বাদী জানান, মঙ্গলবার সকাল ১০টার দিকে সদর উপজেলার রাজনগর গ্রামে প্রতিবেশি মজিদ পাটোয়ারীর বাড়ির উঠোনে তার শিশুকন্যা খেলা করছিল। ওই সময় মজিদ পাটোয়ারী তাকে মুড়ি খেতে দেওয়ার নাম করে নিজ ঘরে নিয়ে ধর্ষণ করে। এ সময় চিৎকার শুনে তিনিসহ আশপাশের লোকজন সেখানে গিয়ে রক্তাক্ত অবস্থায় শিশুটিকে উদ্ধার করেন। জড়ো হওয়া লোকজন ঘটনা বুঝতে পেরে ধর্ষক মজিদ পাটোয়ারীকে আটক করে গাছের সঙ্গে বেঁধে রাখেন।

এদিকে, ধর্ষিত শিশুটির চিকিৎসার জন্য ব্যস্ত হয়ে পড়েন তার মা। এই সুযোগে সদর উপজেলার লাবসা ইউনিয়ন যুবলীগের সহ-সভাপতি শফিকুল ইসলাম বাপ্পীসহ প্রভাবশালীরা ধর্ষক মজিদ পাটোয়ারীকে ছাড়িয়ে নিয়ে যান বলে অভিযোগ করেন ওই নারী। এর পর আর মজিদ পাটোয়ারীর খোঁজ মেলেনি।

মামলার বাদী আরও জানান, শিশুটিকে প্রথমে স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা দেওয়া হয়। কিন্তু অবস্থার অবনতি হওয়ায় বুধবার সকালে তাকে সদর হাসপাতালে আনা হয়। সেখানে এখনো ডাক্তারদের তত্ত্বাবধানে রয়েছে শিশুটি।

পরে বুধবার সন্ধ্যায় মজিদ পাটোয়ারীকে আসামি করে থানায় এজাহার দাখিল করেন ধর্ষিত শিশুটির মা।

সদর হাসপাতালের ওয়ানস্টপ ক্রাইসিস সেলের (ওসিসি) প্রোগ্রাম অফিসার মো. আবদুল হাই সিদ্দিক শিশুটিকে ধর্ষণ করা হয়েছে বলে লিখিতভাবে নিশ্চিত করেছেন।

শিশুটিকে মনো-সামাজিক কাউন্সেলিংও দেওয়া হয়েছে বলে তিনি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে (ওসি) লিখেছেন।
সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফিরোজ হোসেন মোল্যা জানান, বুধবার সন্ধ্যায় অভিযোগ পেয়েই ৯/১ ধারায় মামলা রেকর্ড করা হয়েছে। মামলা নম্বর ৩। তিনি আরও বলেন, ধর্ষককে গ্রেপ্তারে অভিযান শুরু হয়েছে।