ইতিহাস-ঐতিহ্যপ্রচ্ছ্দসারাদেশ

বিলুপ্তির পথে গ্রাম বাংলা ঐতিহ্য বাবুই পাখির বাসা

মাহফুজ আহম্মেদ, শেরপুর (বগুড়া) প্রতিনিধিঃ

গ্রাম বাংলার অতি পরিচিত বাবুই পাখি তার নিপুণ ছোঁয়ায় তৈরি করতো নিজ বাসা। সেই নিপুন সৈল্পিকতা দেখে কবি সাহিত্যিক কবিতা লিখেছে। মহান আল্লাহ পাকের সৃষ্ট এত ছোট পাখির দ্বারা এই শৈল্পিক নির্মাণ সৃষ্টি জগতের বিষ্ময়। কালের আবর্তে এই বাবুই পাখির বাসা আজ বিলুপ্তির পথে। এখন আর আগের মত দেখা যায় না বাবুই পাখির বাসা। গ্রাম-গঞ্জে নারিকেল পাতা, তালের পাতা, খেজুর পাতা, কাশের পাতা, আগের পাতা, লম্বা শক্ত ঘাস এ সবের সমন্বয়ে একটি গাছে তিন প্রকারের বাসা নির্মাণ করতো বাবুই পাখি। এর মধ্যে একটি বসবাসের জন্য একটি ডিম পেড়ে বাচ্চা ফুটানোর জন্য এবং একটি খাবার সংগ্রহ করে রাখার জন্য। বাসা নির্মানের জন্য তারা সাধারণত তাল গাছকে বেশি বেছে নিতো। কারণ অন্যান্য গাছের তালপাতা ঝড়ে ভাঙ্গার সম্ভাবনা বেশী। কিন্তু তাল গাছের ডাল পালা না থাকায় ভাঙ্গার সম্ভাবনা কম। এ এক্ষত্রেও বাবুই পাখি চরম বুদ্ধিমত্তার পরিচয় পাওয়া যায়। তালগাছ দীর্ঘমেয়াদী গাছ। তাই বাণির্জিকভাবে তাল গাছের আবাদ হয় না। গ্রাম-গঞ্জে থেকে বিলুপ্ত হয়ে গেছে তাল গাছ। তাই বাবুই পাখি এখন বাসা বাঁধারও জায়গা পায় না। তারপরও মানুষ বনবাদাড় সাথে করে সেখানে গড়ে তুলছে সুরম্য অট্রালিকা। তাই বাবুইরা প্রজনন করতে না পারায় ক্রমেই হারিয়ে যাচ্ছে প্রকৃতির এই নিপুন শিল্পী।

Related Articles